২৩শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বাবুগঞ্জে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী সমর্থকদের সংঘর্ষ, থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি :: আধিপত্য বিস্তারকে বরিশালের বাবুগঞ্জের জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সংহিসতায় আওয়ামীলীগের প্রার্থীর দুইটি মাইক ভাংচুর লুট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সর্মথকদের দুইটি মটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আহত হয়েছে ঊভয় পক্ষের অন্তত ১০জন।

এ ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় উপজেলার জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের শিলনদিয়া বাজার সংলগ্ন এলাকায়। এব্যাপারে উভয় পক্ষ বাবুগঞ্জ থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছে বলে বাবুগঞ্জ থানার ওসি মোঃ মাহাবুবুর রহমান জানিয়েছে।

এ ঘটনায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর পরস্পর বিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে। স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী কামরুল আহসান হিমু খান জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে তার কর্মী সমর্থকরা গনসংযোগ শেষে শিলনদিয়া বাজার দিয়ে মোটরসাইকেল বহর নিয়ে যাওয়ার সময় আওয়ামী লীগের প্রার্থী তারিকুল ইসলাম তারেক তার নেতাকর্মীরা মোটরসাইকেল বহরে উপর হামলা চালিয়ে তার কর্মী সমর্থকদের বেধরক মারপিট করে ও ২ টি মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ করেছে। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও হামলা সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

মটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগের ঘটনা অস্বীকার করে আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী তারিকুল ইসলাম বলেন, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী কামরুল আহসান হিমু খান বাবুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি। ছাত্রলীগের সভাপতির ক্ষমতার প্রভাব খাটি বিএনপি নেতাকর্মীরা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদেরকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে তাই আজ জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ন আ’লীগের নেতাকর্মী বিএনপির নেতাকর্মীর কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন।

তিনি আরো বলেন, পূর্ব নির্ধারিত অনুযায়ী বৃহস্পতিবার বিকালে শিলনদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠান শেষে তার নেতাকর্মীরা শিলনদিয়া বাজারে চা পান করতে যায়। এসময় বিএনপির সহ-সভাপতি ও স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী কামরুল আহসান হিমু খান তার চাচাতো ভাই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান জয়ের ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে তার দলীয় বিএনপি নেতাকমীসহ ১০/১৫টি মটরসাইকেল বহর নিয়ে শিলনদিয়া বাজারে আসেন এবং তার এক কর্মী আগ্নেয় অস্ত্র উচু করে নৌকার প্রার্থী ও কর্মী সর্মথকদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করায় দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় নৌকা প্রার্থীর নির্বাচনীয় প্রচারের দুই মাইক ভাঙচুর ও একটি মাইকের মেশিন লুট করে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে বাবুগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাহাবুবুর রহমান বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাতে তিনি অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেছেন। এ ঘটনায় উভয় পক্ষ বাবুগঞ্জ থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে ওসি মাহবুবুর রহমান সত্যতা স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ