২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বাবুগঞ্জে সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ দাবির অভিযোগ

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

বাবুগঞ্জ (বরিশাল)প্রতিনিধি ::: বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা (এটিও) মো. মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে ঘুষ দাবির অভিযোগ উঠেছে। বুধবার (১৭ এপ্রিল) ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ঘুষ দাবীর অভিযোগ এনে ঠিকাদার আশিকুর রহমান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাকিলা রহমানের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য, বরিশাল ৩ ( বাবুগঞ্জ – মুলাদী) আসনের সাংসদ সদস্য, বীরমুক্তিযোদ্ধা গোলাম কিবরিয়া টিপুর ডিউলেটারের মাধ্যমে বাবুগঞ্জ রমজান কাঠি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চরডিজাইনের একটি ভবন নির্মাণের বরাদ্দ হয়েছে। এ কাজটি টেন্ডারের মাধ্যমে ‘মালাসি এন্টারপ্রাইজ’ পায়।রমজাকাঠী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজের ঠিকাদার হিসেবে স্কুল ভবনের জায়গা নির্ধারনের জন্য স্কুলের কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করলে তারা রেজুলেশন করে গাছ কাটার আইনগত ব্যবস্থা নেয়। প্রধান শিক্ষক বিধি মোতাবেক গাছ নিলাম করে ওই জায়গাই স্কুল ভবন নির্মাণ করার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর আবেদন করেন। তিনি মার্ক করে বন বিভাগকে দেন। বন বিভাগ সরোজমিনে গাছ মেপে মূল্য নির্ধারণ করে। গাছ নিলামে দেয়ার পূর্বে উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম ওই স্থানে স্কুল ভবন নির্মাণের ঠিকাদারের কাছে তিন লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করে।
ঠিকাদার ৩ লাখ টাকা ঘুষ দিতে অস্বীকার করায় সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মুনিরুল ইসলাম সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ভূল বুঝিয়ে চলমান কাজ বন্ধ করে দেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসী স্থানীয় সংসদ সদস্যের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের সভাপতি জিয়াউদ্দিন মনির জানান- রমজান কাঠি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের হাফ কিলোমিটার দূরে নতুন স্কুল ভবন নির্মাণ করার জন্য একটি পক্ষ পায়তারা করে আসছে। কিন্তু ওই জমি নিয়ে উচ্চ আদালতে মামলা চলমান থাকায় ও নদী সংলগ্ন হওয়ায় আমরা পূর্বের জায়গায় রেজুলেশনের মাধ্যমে নতুন ভবন নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেই। কিন্তু সহকারি শিক্ষা অফিসারের স্বেচ্ছাচারিতার কারণে ওই স্কুল ভবন নির্মাণের কাজ বর্তমানে বন্ধ রয়েছে।

এ বিষয়ে সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম ঘুস চাওয়ার বিষয় অস্বিকার করেন ।

সর্বশেষ