২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বাড়ি ফিরতে ক্যাম্পাসের বাস চায় ববি শিক্ষার্থীরা

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

অনলাইন ডেস্ক :: করোনায় সেশনজটের থাবায় শিক্ষাজীবন যখন ঝুঁকির মুখে, অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালেয় মতো বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ও (ববি) উদ্যোগ নিয়েছিল সশরীরে ফাইনাল পরীক্ষা নেওয়ার। কিন্তু পুনরায় সরকার ঘোষিত লকডাউনে স্থগিত হয় পরীক্ষা। এমতাবস্থায় দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থীরাও বিপাকে পড়েছেন। একে তো হলে থাকার সুযোগ নেই, তার ওপর লকডাউনে সব যান চলাচল বন্ধ।

এমতাবস্থায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো ক্যাম্পাসের বাস সার্ভিস চালু করে বাড়ি পৌঁছানোর দাবি জানাচ্ছেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা।

মার্কেটিং বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী আহসান উল্লাহ, বগুড়া থেকে আসা উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী আবু তাহের, নেত্রকোনা থেকে আসা আইন বিভাগের শিক্ষার্থী রিফাত সারওয়ার খান,যশোর থেকে আসা রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী সম্পা রয়, রাজবাড়ী থেকে আসা ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী রাজিফা আক্তার, সিলেট থেকে মার্কেটিং বিভাগের আরেক শিক্ষার্থী আল ফারিউল শিক্ত, পটুয়াখালীর কলাপাড়া থেকে আসা পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান, এছাড়াও আটকে পড়েছেন গনিত বিভাগের মাহবুব খান ও কুয়াকাটার মহিপুর থেকে আসা হিসাববিজ্ঞান বিভাগের রিফাত লিমন সহ আরো শতাধিক শিক্ষার্থী।

পরীক্ষা দিতে এসে আটকে পড়া গণিত বিভাগের শিক্ষার্থী তাসফিক হাসান লিংকন বলেন, আমার বাসা জামালপুর। পরীক্ষার কারণে বরিশালে আসা। আমি হলে থাকতাম, এখন তো হল বন্ধ। কয়দিনের জন্য বন্ধুদের মেসে উঠেছিলাম। বরিশাল থাকার তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই। বাড়ি যেতে চাই, কঠোর লকডাউনে সেটাও সম্ভব নয়। ইতোমধ্যে আমার কয়েক জন সহপাঠি কোভিড পজেটিভ। মেছে থাকার কারণে হয়তো আমিও আক্রান্ত হয়ে যেতে পারি। কী করবো, বুঝতে পারছি না। এ অবস্থায় আমরা যারা বরিশালে আটকা পড়ে আছি, তাদের বাড়ি পৌঁছে দেওয়াটা মনে হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের একান্ত দায়িত্ব।

আইন বিভাগের শিক্ষার্থী রিফাত সারওয়ার খান বলেন, ডিপার্টমেন্টের শিক্ষকরা বলেছিলেন এই বছরের মার্চে পরীক্ষা হবে কিন্তু আবার এই কঠোর লকডাউনের কারণে নাস্তানাবুদ হয়ে বাড়ি ফিরে যেতে হয়েছিল, তারপর স্যারেরা আবার ডেট দিয়ে বললো যে জুনের দ্বিতীয় ধাপে পরীক্ষা হবে। সবাইকে বরিশাল আসতে বলা হলো, আমরাও আসলাম ফের বাসা ভাড়া নিলাম, পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছি। এমন সময় সরকার কঠোর লকডাউন দিয়ে দিলো। এখন পরীক্ষা দেব কি, বাড়ি যাওয়া নিয়ে টেনশনে আছি। ক্যাম্পাসের বাস চাই।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. সুব্রত কুমার দাস বলেন, এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক মন্তব্য করতে চাচ্ছি না। তবে উপাচার্য স্যারের সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী সময়ে জানিয়ে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৪ জুন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিত হওয়া চূড়ান্ত পর্বের (সেমিস্টার ফাইনাল) পরীক্ষা সশরীরে শুরু হয় এবং ২৭ জুন দেশব্যাপী লকডাউনের কারণে সব পরীক্ষা স্থগিত ঘোষণা করা হয়।

সর্বশেষ