৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

মসজিদে মিলাদ করাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা

মুহাম্মাদ আবু মুসা: বহিরাগতদের এনে মসজিদে মিলাদ মাহফিল করার নামে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করার অভিযোগ করা হয়েছে। ফলে এ ধরনের মিলাদ মাহফিল করতে অনুমতি না দেয়ার জন্য বগুড়ার গাবতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ রওনক জাহান এর নিকট লিখিতভাবে আবেদন করেছেন মুসুল্লিরা। উপজেলার নশিপুর ইউনিয়নের নিজগ্রাম উত্তরপাড়া সুন্নাতুল জামাত জামে মসজিদের কমিটির সদস্য ও মুসুল্লিদের পক্ষে সিরাজুল ইসলাম, মোঃ রেজা ও আব্দুল গনিসহ ৩৫জন স্বাক্ষরিত গত ১৭অক্টোবর রোববার এই লিখিতভাবে আবেদনটি করা হয়। লিখিত আবেদনে উল্লেখ রয়েছে, গত কয়েক দিন যাবৎ মিলাদ মাহফিলকে কেন্দ্র করে কমিটিকে ব্যতি রেখে কতিপয় বহিরাগত লোক মসজিদে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছে। ফলে মহল্লায় নানা রকম বিবাদ সৃষ্টি হয়েছে। যে কারনে এ ধরনের মিলাদ মাহফিল করতে অনুমতি না দেয়ার জন্য মুসুল্লীরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা’র নিকট আবেদন করেছেন। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাঃ রওনক জাহান এর সাথে কথা বললে তিনি এ সংক্রান্ত মুসুল্লিদের লিখিত আবেদনটি পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেছেন শান্তি বজায় রাখতে ওই মসজিদে মিলাদ মাহফিল না করার জন্য অপর পক্ষকে বলা হয়েছে। এ ছাড়া সার্বিক বিষয়টি দেখার জন্য থানার ওসির কাছে মুসুল্লিদের লিখিত আবেদনটি পাঠানো হয়েছে। থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা’র মাধ্যমে এ সংক্রান্ত একটি লিখিত আবেদন পেয়েছি। সার্বিক বিষয়টি খতিয়ে দেখে এবং আইন শৃঙ্খলা রক্ষার্থে যথাযথভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে। নিজগ্রাম উত্তরপাড়া সুন্নাতুল জামাত জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, ১২ই রবিউল আওয়াল উপলক্ষে মঙ্গলবার বাদ মাগরিব থেকে এশার নামাজের পূর্ব পর্যন্ত মসজিদে মিলাদ মাহফিল অর্থাৎ নবী করিম (সাঃ) এর জীবনীর উপর আলোচনা করা হবে। তিনি (সিদ্দিক) আরো জানান, প্রতি বছর বাহিরে মিলাদ মাহফিল করা হলেও এবার মসজিদে হবে। তবে প্রশাসন থেকে যে নির্দেশনা দেবে আমরা তার বাহিরে যাবো না। স্থানীয় আরিফুর রহমান আলম মাস্টার জানান, শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রেখে মসজিদেই মিলাদ মাহফিল হবে। অপর দিকে আবেদনকারী মুসুল্লীরা জানিয়েছেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাদেরকে বাহিরে করতে বলেছেন, তার পরও মসজিদে বহিরাগতদের এনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে গ্রামবাসি তা মেনে নেবে না, প্রতিহত করা হবে। স্থানীয় নশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম মিন্টু সাকিদার ও স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার শহিদুল্লাহ প্রামানিক বুলু জানান, কয়েক দিন হলে এ বিষয় নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে চাপা ক্ষোভ উত্তেজনা চলছে। তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাদেরকে মসজিদের বাহিরে মিলাদ মাহফিল করার কথা বলেছেন। এই নিদের্শ মানা হলে উভয় পক্ষের মধ্যে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় থাকবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ