২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মাদারীপুরে সড়ক-মহাসড়ক দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অবৈধ যানবাহন, ঘটছে প্রানহানি

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
জাহিদ হাসান, মাদারীপুর প্রতিনিধি:
মাদারীপুরের বিভিন্ন সড়ক-মহাসড়ক দাপিয়ে বেড়াচ্ছে ইটভাটার মাটি, বালু ও ইটবহনকারী অনুমোদনবিহীন ট্রাক্টর (টলী), মাহেন্দ্রা এবং শ্যালো ইঞ্জিনচালিত অবৈধ যানবাহন। এতে করে একদিকে নষ্ট হচ্ছে সড়ক অন্যদিকে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। প্রশাসনের নাকের ডগায় এই ধরনের অবৈধ যানবহান চলাচল করলেও পুলিশ কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। এতে করে ক্ষুব্ধ সাধারণ নাগরিকরা। স্থানীয়দের দাবী অবৈধ যানবাহনের মালিকরা নিয়মিত মাসোহারা দিয়ে থাকে। সে কারনেই বন্ধ হচ্ছে না এই অবৈধ যানবাহন। তবে প্রশাসনের কাছে এসব অনুমোদনবিহীন বালু ও ইটবাহী মাহেন্দ্রা, ট্রাক্টর এবং শ্যালো ইঞ্জিনচালিত গাড়ির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানিয়েছেন স্থানীরা।
জানা গেছে, গত ২৮ জানুয়ারি অবৈধ মাহিন্দ্রের ধাক্কায় মাদারীপুরের কালকিনিতে মো. নেছার উদ্দিন হাওলাদার (৩৮) নামে একআইনজীবি সহকারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে নিহতের স্বজনেরা ও স্থানীয় জনতা সড়ক অবরোধ করে এবং ওই ঘাতক মাহিন্দ্রটি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। একটি অবৈধ মাহিন্দ্র এসে পেছন থেকে নেছার উদ্দিনের মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এতে নিহত হয় নেছার।
কয়েক মাস আগে ডাসার থানার বালিগ্রাম ইউনিয়নের ধুলগ্রাম নামকস্থানে রেজাউল করিম বারেক নামে এক মুক্তিযোদ্ধা ইটবাহি নছিমনের ধাক্কায় নিহত হন। শুধু মুক্তিযোদ্ধা বারেক ও নেছার নয়। প্রতিনিয়তই ঘটছে এমন দুর্ঘটনা। এরপরও পুলিশের নাকের ডগা দিয়েই চলছে এইসব অবৈধ যানবাহন।
সরেজমিন দেখা গেছে, জেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রতিনিয়ত কয়েকশত অনুমোদনবিহীন বালু ও ইটবাহী মাহেন্দ্রা, ট্রাক্টর এবং শ্যালো ইঞ্জিনচালিত গাড়ি চলছে সড়ক-মহাসড়ক দিয়ে। এই অতিরিক্ত ওজনের মাটি, ইট ও বালু বহনের কারণে কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত পাকা সড়কগুলোর কার্পেটিং উঠে গিয়ে খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। বেড়েছে জনদুর্ভোগ। ঘটছে দুর্ঘটনা। মাটি, বালু ও ইট টানার কাজে ব্যবহৃত এসব ট্রাক্টর এবং তিন চাকার যান সড়ক-মহাসড়কে চলাচল নিষিদ্ধ থাকলেও দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। এইসব যানবহানের চালকদের নেই লাইসেন্স।
মাদারীপুরের স্থানীয় বাসিন্দা সামসুল হক জানান, মাদারীপুরের বিভিন্ন সড়ক-মহাসড়কে প্রতিনিয়ত অবৈধ যানবাহন চলাচল করে। আমরা শুনেছি এই অবৈধ যানবাহন থেকে ট্রাফিক পুলিশ নিয়মিত অবৈধ সুবিধা পেয়ে থাকে। যার কারনে বন্ধ করা যাচ্ছে না অবৈধ যানবাহন।
মাদারীপুর উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি এ্যাডভোকেট মাসুদ পারভেজ বলেন, ইটভাটার মাটি, বালু ও ইট বহনের ট্রাক্টরের চাকায় কোটি কোটি টাকার সড়ক নষ্ট হচ্ছে। মারাত্মক শব্দদূষণ ও ধুলাবালির প্রভাব পড়ছে পরিবেশের উপর। প্রানহানির ঘটনাও ঘটছে প্রতিনিয়ত। তাই এইসব গাড়ির বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান তিনি।
মাদারীপুরের অতিরিক্তি পুলিশ সুপার মো. আলাউল হাসান জানান, অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। অবৈধ যানবাহনকে কোন প্রকার ছাড় দেয়া হবে না। পুলিশের মাসোহারা গ্রহনের অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি।

সর্বশেষ