১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
চল্লিশ কাহনিয়া প্রবাসী কল্যাণ সমিতির মানবিক কাজে মুগ্ধ গ্রামবাসী বরিশালে বাস-মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে ২ কিশোর নিহত পটুয়াখালীতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে ঢুকে ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ অধ্যক্ষ নজরুল ইসলামের ২৯তম মৃত্যুবার্ষিকীতে এসটিএস হাসপাতালের ২ দিন ব্যাপী ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্প করোনায় আরও ৩৮ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১ হাজার ৯০৭ ভোলায় মহানবী (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি, পূজা পরিষদের সভাপতি আটক ইন্দুরকানীতে নয় বছরেও সেতুতে নেই ল্যাম্পপোষ্ট, পথচারীদের ভোগান্তি পটুয়াখালীর চার সেতুতে লাইট পোস্টে আলো নেই মেহেন্দিগঞ্জে নৌ-পুলিশের অভিযানে কোটি টাকার অবৈধ কারেন্ট জাল উদ্ধার অধ্যক্ষ নজরুল ইসলামের কবরে চরফ্যাসন প্রেসক্লাবের শ্রদ্ধাঞ্জলি

মুলাদীতে পানি সরবরাহ কাজ বন্ধ করে দিলেন দুই ছাত্রলীগ নেতা

নিজস্ব প্রতিবেদক ::: বরিশালের মুলাদী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আহমেদ জুয়েল ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান ইমামের বাধায় পৌরসভার সুপেয় পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন প্রকল্পের কাজ বন্ধ হয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মঙ্গলবার (২৯ জুন) সন্ধ্যায় ঠিকাদারের প্রতিনিধি প্রকৌশলী রুবেল হোসেন এ অভিযোগ করেন।

পৌরসভা স্যানিটেশন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, দেশের ২৩টি পৌরসভায় সুপেয় পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন প্রকল্পের আওতায় শুক্রবার (২৫ জুন) মুলাদী পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে পাঁচ কোটি ৩৪ লাখ টাকা ব্যয়ে সাড়ে ১৫ কিলোমিটার পাইপলাইন স্থাপনের কাজ শুরু হয়। দরপত্রের মাধ্যমে মুলাদী পৌরসভার কাজ পায় বরগুনা জেলার ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স কামাল এন্টারপ্রাইজ।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স কামাল এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মো. কামাল হোসেন অভিযোগ করেন, পাইপলাইন স্থাপনের জন্য তার লোকজন ও শ্রমিকরা শুক্রবার মুলাদী পৌর এলাকায় কাজ শুরু করেন। কাজ শুরুর পর থেকেই মুলাদী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আহমেদ জুয়েল ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান ইমাম শ্রমিক ও লোকজনদের নানাভাবে হয়রানি শুরু করেন।

সোমবার (২৮ জুন) তার লোকজন পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডে উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ তারিকুল হাসান মিঠু খানের বাড়ির সামনে পাইপলাইন স্থাপনের কাজ করছিলেন। ওই সময় জুবায়ের আহমেদ জুয়েল এবং মেহেদী হাসান ইমাম এসে তার শ্রমিক ও লোকজনদের কাজ বন্ধ রাখতে বলেন। এসময় ওই দুই ছাত্রলীগ নেতা বলেন, তাদের সঙ্গে সমন্বয় না করে একটি পাইপও স্থাপন করা যাবে না। ওই দুই ছাত্রলীগ নেতা আজ পুনরায় কাজের তদারকির দায়িত্বে থাকা তার প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলী রুবেল হোসেনকে অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে কাজ বন্ধ করে দেন।

কামাল হোসেন বলেন, ওই দুই ছাত্রলীগ নেতার এমন কর্মকাণ্ডের কারণে শ্রমিকরা ভীত-সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছেন। কয়েকজন কাজ না করেই সেখান থেকে চলে যেতে যাচ্ছেন। মুলাদী পৌর মেয়র শফিকউজ্জামান রুবেলকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। তিনি আইনের আশ্রয় নিতে বলেছেন।

এ-সংক্রান্ত লিখিত অভিযোগ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি), র‌্যাব-৮ বরিশালসহ বিভিন্ন দফতরে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান তিনি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মুলাদী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের আহমেদ জুয়েল বলেন, ‘উপজেলা চেয়ারম্যান তারিকুল হাসান মিঠু খান ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাজের মান ঠিক হচ্ছে কি-না তা জানতে চেয়েছেন। শিডিউল বা ওয়ার্ক ওর্ডারে কোন ধরনের পাইপ দেয়ার কথা উল্লেখ করা হয়েছে তা দেখতে উপজেলা চেয়ারম্যান ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বসতে চেয়েছেন। এজন্য আমরা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজনকে উপজেলা চেয়ারম্যান তারিকুল হাসান মিঠু খানের সঙ্গে বসে কাগজপত্র দেখিয়ে কাজ শুরু করতে বলেছি।’

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান তারিকুল হাসান মিঠু খান বলেন, ‘বিষয়টি যেভাবে রটানো হচ্ছে, সে ধরনের ঘটনা ঘটেনি। ভবিষ্যতে পৌরবাসীর যাতে দুর্ভোগ না হয় সেজন্য আমি আজ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের মুলাদী উপজেলা প্রকৌশলীকে ডেকে শুধু পাইপের মানটা ভালো দেয়ার জন্য বলেছি।’

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ