৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

রিয়াদে বাংলাদেশী গার্মেন্টস পন্য বিপনি বিতান ফাইনলুকের ১২তম শাখা উদ্বোধন

রিয়াদ প্রতিনিধি: সৌদি আরবে বাংলাদেশিদের রেডিমেইড গার্মেন্টেসের সামগ্রির বিপণি বিতান জগতে গর্বিত প্রসিদ্ধ ও নির্ভযোগ্য প্রতিষ্ঠান ফাইনলুক। রাজধানী রিয়াদ সহ জেদ্দা তায়েফ সিটির বিখ্যাত শপিংমল গুলোতে ১২টি ফাইনলুক গার্মেন্টস বিপনি বিতান রয়েছে। সৌদি আরব রিয়াদের ৮ নং এক্সিটের দাম্মাম- রিয়াদ মহাসড়কে ফাইনলুকের ১২তম শাখার শুভ উদ্বোধন হয় সম্প্রতি। তারুন্যময় ফ্যাশানাবল র্স্মাট সেভেন জেনারেশনের রুচিশিল নাগরিকদের বস্ত্রবিতানের বাহারি সমাহারের নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান ফাইনলুক। চিপ এন্ড বেস্টকে তার্গেট করে, বাংলাদেশি গার্মেন্টস ও জুতা শিল্পকে সৌদি আরবে প্রসার ঘটানোই ফাইনলুকের দিন দিন নবযাত্রা।
বাংলাদেশের স্বনামধন্য কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়ারচর উপজেলার কৃতি সন্তান ও উপজেলা পরিষদের জননন্দিত নির্বাচিত চেয়ারম্যান সৌদি আরবের সফল ব্যবসায়ি ও প্রবাসী গার্মেন্টস শিল্পের যুব উদ্যোগতা ইয়াছির মিয়া সৌদি আরবের বিখ্যাত ফাইনলুকের প্রতিষ্ঠাতা ও স্বত্বাধিকারি। মাত্র ১০ বছরে সৌদি আরবে ১২টি ফাইনলুক গার্মেন্টস বিপনি বিতান প্রতিষ্ঠা করেছেন। তিনি নিজেও সৌদি আরবে ইনভেস্টর হয়েছেন। ইয়াছির মিয়ার মালিকানাধিন গার্মেন্টস পন্য বিক্রয় প্রতিষ্ঠান ফাইনলুকের ১২তম শাখার উদ্বোধন করা হয় রাজধানী রিয়াদের দাম্মাম-রিয়াদ মহাসড়কে ফিতা ও কেক কাটার মধ্য দিয়ে। এ সময় ফাইনলুকের কর্মকর্তা মেসবাহ করিম ও স্থানিয় সৌদি নাগরিকগণ উপস্থিত ছিলেন।
বাংলাদেশের গার্মেন্টেসের ১০০% উৎপাদিত পন্য সামগগ্রি, পুরুষ-মহিলা- শিশুদের বস্ত্র ও জুতা স্যান্ডেল সামগ্রির ব্যাপক চাহিদা দিনদিন বাড়ছে সৌদি আরবে। সৌদি আরবে চীন-ভারত-পাকিস্তানের পন্য সামগ্রীর একচেটিয়া মার্কেট ছিল। বর্তমানে ভারত পাকিস্তান ও চায়না থেকেও গুনগতমানে উন্নত ও সুলভমুল্যে বাংলাদেশি গার্মেন্টস পন্য সৌদি নাগরিকদের কাছে চাহিদা সহ সমাদৃত হচ্ছে। সৌদি আরবে প্রবাসী ইয়াছির মিয়ার হাতে প্রতিষ্ঠিত ফাইনলুক মাত্র ১০ বছরে রিয়াদে ৩টি সহ জেদ্দা-তায়েফ সিটির বড় বড় শপিং মলগুলোতে ফাইনলুক সফলতার সাথে পরিচালিত করছেন। দুই শাতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশিদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছেন। সৌদিয়ানদের কাছে বাংলাদেশের ইমেজ বাড়ছে দিন দিন। সৌদি আরবে গার্মেন্টস পন্য রপ্তানির খাতে বাংলাদেশ সরকারথেকে বিশেষ প্রনোদনা দিলে ইউরোপের মতো তেল সম্পদে সমৃদ্ধ সারে ৩ কোটি জনগণের সৌদি আরবে বাংলাদেশি গার্মেন্টস শিল্পের নতুন দ্বার খুলবে। এতে বাড়বে রেমিটেন্সের প্রবাহ। প্রবাসীদের অবদান বাড়বে দেশের জিডিপিতে।
ফাইনলুকের উদ্বোধন উপলক্ষে ২দিন ব্যাপি ৪০% মুল্য হ্রাস দেয়া হয় গ্রাহক সাধারনের জন্য। সৌদিয়ান ও প্রবাসী বাংলাদেশি সহ ৩০০ জনের কর্মিবাহিনি দ্বারা ফাইনলুক গ্রাহকদের সেবা দিয়ে আসছে।
ফাইনলুকের উদ্বোধন কালে- ইয়াছির মিয়া বলেন- ভারত পাকিস্তানের মতো বাংলাদেশ সরকার গার্মেন্টস রপ্তানি পন্যের উপর আরো বেশি প্রনোদনা দেওয়া উচিত। কেবল সৌদি আরবে গার্মেন্টস পন্য রপ্তানির খাতে প্রবাসবান্ধব মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিশেষ পৃষ্ঠপোষকতা দিলে সৌদি আরবে আরো শিল্প উদ্যোগতা বাড়বে। সৌদি আরবে বাংলাদেশ থেকে রপ্তানি পন্য আসার ক্ষেত্রে সকল প্রতিবন্ধকতা নিরসন সহ সহজিকরনের দাবি করেন ফাইনলুকের প্রতিষ্ঠাতা সফল প্রবাসী ব্যবসায়ি ইয়াছির মিয়া। এছাড়াও সৌদি আরবের নতুন ভিসায় প্রবাসীদের আসার আগে ইকামা ও কাজের নিশ্চয়তা যাচাইয়ের আহব্বান জানান তিনি। এ ক্ষেত্রে সরকারের কঠোর মনিটারিং করা উচিত। গার্মেন্টস খাত ছাড়াও বাংলাদেশের খাদ্য পন্যের ব্যপক চাহিদা রয়েছে সৌদি আরবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ