২৬শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম

সিরাজগঞ্জে ৩২ বছরের স্বত্ত্বদখলীয় জায়গা জোরপুর্বক দখলের অপচেষ্টা!

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সেলিম শিকদার,সিরাজগঞ্জঃ-
সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার জনগুরুত্বপুর্ণ চান্দাইকোনা বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মোহাম্মাদ মোজাহারুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির ৩২ বছর পূর্বে ক্রয়কৃত ও স্বত্ত্বদখলীয় এবং অতিমুল্যবান ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জায়গা একতরফা ভাবে মিস কেসের রায়ের মাধ্যমে জোরপুর্বক ভাবে দখলের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে চান্দাইকোনা বাজারের অচিন্ত কুমার নাগ নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে।

অভিযোগে জানাগেছে,
সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার চান্দাইকোনা বাজারের মৃত্য মুঞ্জিল হকের পুত্র ও চান্দাইকোনা বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মোহাম্মাদ মোজাহারুল ইসলাম বিগত ৩২ বছর আগে ১৯৯৩ সালে স্থানিয় প্রফুল্ল ঘোষের নিকট থেকে চান্দাইকোনা মৌজার ৪২৩ নং-খতিয়ানভুক্ত ২৭০ নং-দাগের ভিতর ১০ শতক জায়গা ক্রয় করেন এবং ওই সময়কালেই যাহা তিনি যথানিয়মে তার নিজ নামে খারিজ করে নেন,যার নামজারী কেস নং-৫৬৯/১৯৯৩-৯৪। এমনকি খারিজকৃত ওই জায়গাটির ভুমি উন্নয়ন কর তিনি বিগত নাম জারির সময় থেকে শুরু করে চলতি ২০২০ সালের ১৬ মার্চ তারিখে পরিশোধ করেছেন,যার ভুমি উন্নয়ন কর পরিশোধের রশিদ নং-৯৪০২৫৩,ক্রমিক নং-ভি এবং তারিখ-১৬/০৩/২০২০। এদিকে দীর্ঘ ৩২ বছর পর ওই জায়গার ভুয়া মালিক ও ওয়ারিশিয়ান সেজে ওই জায়গার নামজারী খারিজের আংশিক সংশোধন ও ০.০১১১ একর জায়গা দাবী করে
চান্দাইকোনা বাজারের বাসিন্দা মৃত্য অখিল চন্দ্র নাগের পুত্র অচিন্ত কুমার নাগ বিগত ২০১৯ সালে রায়গঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি)’র নিকট একটি হয়রানিমুলক মিস কেস দাখিল করেন, যাহার মিস কেস নং-১০/২০১৯-২০। এদিকে ওই মিস কেসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য গত ৫ এপ্রিল ২০২০ শুনানির ধার্য্য তারিখে সকল প্রকার কাগজপত্র (ডকুমেন্ট) নিয়ে হাজী মোজাহারুল ইসলাম প্রস্তুত হয়ে উপস্থিত থাকলেও করোনা সংক্রমন প্রতিরোধের কারণে সরকার ছুটি ঘোষনা করায় অফিস বন্ধ হয়ে যায়।
ফলে ওই ধার্য্য তারিখে এ সংক্রান্ত ব্যাপারে আর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়নাই । এরই মাঝে সরকার ছুটি প্রত্যাহার করায় অফিস খুললে উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি) প্রতিপক্ষ হাজী মোজাহারুল ইসলামকে শুনানির ধার্য্য তারিখ না জানিয়ে ৭ জুন ২০২০ তারিখে অতি গোপনীয় ভাবে অচিন্ত কুমার নাগের পক্ষে একতরফা ভাবে রায় প্রদান করেছেন বলে জানাযায়।
এদিকে প্রতিপক্ষ হাজী মোজাহারুল ইসলামকে ধার্য্য তারিখের কথা না জানিয়ে এবং একতরফা ভাবে ভুয়া ওয়ারিশিয়ান ও অবৈধ দখলদার অচিন্ত কুমার নাগের পক্ষে মিস কেসের বিতর্কিত আদেশ প্রদান করায় উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি)’র বিতর্কিত আদেশ নিয়ে এলাকায় নানা গুঞ্জন ও বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে রায়গঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি)’র বিতর্কিত ও অবৈধ আদেশ বাতিল করার জন্য হাজী মোজাহারুল ইসলাম সংশ্লিষ্ট বিভাগের উর্ধ্বতন মহলের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এ ব্যাপারে রায়গঞ্জ উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভুমি), সুবীর কুমার দাসের সাথে তার ব্যাবহৃত সরকারি মোবাইল নম্বর (০১৭৩৩-৩৩৫০৩৩)
নং এ বার বার যোগাযোগ করা হলেও তিনি মোবাইল ফোন রিসিভ করেন নি,
ফলে এ ভুমি সংক্রান্ত বিষয়ে তার কোন প্রতিক্রিয়া জানাযায় নি।

সর্বশেষ