৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

হঠাৎ বাড়তি পেঁয়াজের দাম

অর্থনীতি।।
রাজধানীর মালিবাগ বাজারে সপ্তাহিক ছুটির দিনে সপ্তাহের বাজার করতে এসেছেন বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী পারভেজ আহমেদ। সব কিছুই বাড়তি দামে কেনার পর পেঁয়াজ কিনতে এসেও তিনি হতাশ হয়েছেন। কারণ হঠাৎ করেই পেঁয়াজের দামও বেড়ে গেছে।

ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের হতাশা প্রকাশ করে পারভেজ আহমেদ বলেন, গত সপ্তাহেই পেঁয়াজ কিনেছি ৫০ টাকায়। আজ সেই পেঁয়াজ কিনতে হলো ৬০ টাকায়। এক সপ্তাহে ১০ টাকা বেড়ে গেল পেঁয়াজের দাম? এরও আগে ৪০/৪৫ টাকায় পেঁয়াজ কিনেছি। এভাবে প্রতি সপ্তাহে যদি পেঁয়াজের দাম বাড়ে তাহলে সাধারণ মানুষ কিভাবে কিনবে?

শুক্রবার (২১ অক্টোবর) রাজধানীর বিভিন্ন কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা গেছে প্রতিটি খুচরা বাজারেই আজ পেঁয়াজের দাম বাড়তি যাচ্ছে। খুচরা বাজারে আজ ভালো মানের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়। এছাড়া যেসব দোকানে পুরোনো অর্থাৎ আগে কেনা পেঁয়াজ রয়েছে সেগুলো ৫৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। তবে বাজারের কোথাও ৫৫ টাকায় নিচে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে না। যা গত সপ্তাহে বা ৪/৫ দিন আগেও ৪৫ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

খুচরা বাজারে হঠাৎ কেন পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেল এ বিষয়ে গুলশান সংলগ্ন কাঁচা বাজারে খুচরা পেঁয়াজ বিক্রেতা লিয়াকত আলী বলেন, পেঁয়াজের দাম হঠাৎ বেড়ে যাওয়ার কারণ হলো আগের পেঁয়াজ শেষের দিকে। এখন নতুন পেঁয়াজ উঠতে আরও কমপক্ষে দুই মাস সময় লাগবে। যে কারণে পাইকারি বাজারেও আমাদের কেনা দাম বেশি পড়ছে। নতুন পেঁয়াজ ওঠার আগ পর্যন্ত দাম বাড়তিই থাকবে বলে মনে হচ্ছে।

রাজধানীর মহাখালী এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে খুচরা পেঁয়াজ বিক্রি করেন সিরাজুল ইসলাম। আজকের বাজার দর কেন বেশি তা জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, আমি পাবনা এলাকা থেকে পেঁয়াজ আনি। এখন ওই এলাকাতেই পেঁয়াজের দাম ২০০০ টাকা মণ। আমার খরচ আছে, সব মিলিয়ে ভালো পেঁয়াজ ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছি আর একটু যেটার মান খারাপ, সেটা আজ ৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাড়তি দামের মূল কারণ পুরোনো পেঁয়াজ এখন শেষের দিকে, এ কারণে এক ধরনের ঘাটতি সৃষ্টি হয়েছে। সব মিলিয়ে পেঁয়াজের দাম বাড়তি।

রাজধানীর মধ্যবাড্ডা এলাকায় ভ্যানে করে পেঁয়াজ বিক্রি করছিলেন উৎপল দাস। তিনি বলেন, কয়েকদিন আগেও ৩৮/৪০ টাকায় পাইকারি বাজার থেকে পেঁয়াজ কিনে ৪৫ টাকায় বিক্রি করতাম। কিন্তু কয়েকদিন ধরে সেই দাম বাড়তি যাচ্ছে। এখন ৫০/৫২ টাকা পাইকারিই কেনা পড়ছে। এরপর সেই পেঁয়াজ বাছাই করে বড় ছোট ভালো আলাদা করে ৫৫/৬০ টাকায় বিক্রি করছি। এখন কিছু দিন পেঁয়াজের দাম বাড়তিই যাবে, এরপর নতুন পেঁয়াজ উঠলে আবার দাম কমতে শুরু করবে।

শান্তিনগর বাজার থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ কিনতে হলো উল্লেখ করে ফিরোজ আহমেদ নামের একজন বেসরকারি চাকরিজীবী বলেন, বাজারে এমন কোনো জিনিস নেই যে জিনিসের বাড়তি দাম যাচ্ছে না। আমাদের মতো নিম্ন আয়ের মানুষ যে কিভাবে এই বাজারে টিকে আছে সে কথা শুধু আমরাই জানি। মাছ, মাংস, ডিম সব কিছুরই দাম বাড়তি। বাজারে ৫০ টাকার নিচে কোনো সবজি নেই। এর মধ্যে হঠাৎ দাম বেড়েছে পেঁয়াজেরও। ৫০ টাকায় যে পেঁয়াজ কিনেছি সেটা আজ কিনতে হলো এক কেজি ৬০ টাকা দিয়ে। আমরা সাধারণ মানুষ দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে আর টিকে থাকতে পারছি না।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ