১৯শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
প্রখ্যাত সাংবাদিক আবদুল গাফফার চৌধুরী আর নেই কর্মস্থলে সিনিয়র-জুনিয়র সম্পর্ক বরিশালে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসকদের ঈদ পুনর্মিলনী ও মধুমাস উদযাপন কাউখালীতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু ইসলামী ব্যাংক ফাউন্ডেশনের নতুন চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. কাজী শহীদুল আলম ভোলায় পুলিশের সহায়তায় বাকপ্রতিবন্ধী মেয়ে খুঁজে পেলো নিরাপদ আশ্রয়স্থল পটুয়াখালী চেম্বার অব কমার্সের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট সদস্য হলেন অধ্যাপক ডাঃ মনিরুজ্জামান শাহীন নির্মিত হলো জিনিয়া জিনি'র মিউজিক ভিডিও 'ও সাথী' ঢাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ২টি হত্যা মামলায় মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত পলাতক আসামী বিপ্লব উজিরপুরে গ্রেফতার

২৮ ফেব্রুয়ারী চরফ্যাশন পৌরসভা নির্বাচন, প্রতিশ্রুতি নিয়ে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে প্রার্থীরা

এম লোকমান হোসেন, চরফ্যাশন (ভোলা) থেকে: আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারী ৫ম ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ভোলার চরফ্যাশন পৌরসভা নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী এসএম মোরশেদ ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হুমায়ুন কবির শিকদাপর এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী অধ্যক্ষ মীর মোহাম্মদ শরীফ হোসেন নির্বাচনী মাঠ গোছাতে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন। পাড়া-মহল্লার বয়ঃ বৃদ্ধসহ তরুন,যুবক এবং নারী ভোটারদের কাছে সালাম বিনিময়ে করে ভোট চেয়ে নানান প্রতিশ্রুতি সম্পন্ন লিপলেট বিতরণ করছেন এসব প্রার্থীরা। এছাড়াও পৌর শহর জুড়ে ছেয়ে গেছে বিভিন্ন প্রার্থীর পোস্টার।
যাচাই বাছাই শেষে ৩ মেয়র ও ৩৩ জন সাধারণ কাউন্সিলর এবং ৭জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে প্রার্থীরা প্রতীক বরাদ্ধের পর থেকেই এ প্রচারণা শুরু করেন। তবে ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৬ ও ৭ নং ওয়ার্ডের ৩জন কাউন্সিলর পদ প্রার্থী ইতমধ্যেই বিনা প্রতিদ্ব›দ্বীতায় নির্বাচীত হওয়ায় উপজেলা নির্বাচন অফিস ওই প্রার্থীদের হাতে বিজয় কার্ড তুলে দেন বলে অফিস সূত্রে জানাগেছে।
নগরভিত্তিক স্থানিয় সরকার সংস্থা চরফ্যাশন পৌরসভা ১৯৯০সালের ১৭ নভেম্বর ‘গ’ শ্রেণীর পৌরসভা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। যা পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে “খ’ ও সর্বশেষ “ক’ শ্রেণীতে উন্নিত হয়ে স্থানীয় নাগরীকদের জীবন যাপনে সেবার মান বাড়িয়ে দেয়।
৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত ১৯.৫ বর্গ কিলোমিটারের ‘ক’ শ্রেণীতে উন্নিত হওয়া এই পৌরসভায় প্রায় ৪০হাজার বাসীন্দার মধ্যে ভোটার সংখ্যা ২৭ হাজার ৫৭১জন। আর এ স্থানিয় সরকার সংস্থার মেয়রের চেয়ারে ৯ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও ৩জন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর নিয়ে ১জন নির্বাচীত যোগ্য মেয়রকে বসাতে ভোটারেরাও তাদের পছন্দের প্রার্থীকেই ভোট দিবেন বলে আশাবাদী নতুন এসব প্রার্থীরা।
এসব ভোটারদের দ্বারে দ্বারে আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী এসএম মোরশেদ নৌকা, বিএনপি প্রার্থী হুমায়ুন কবির ধানের শীষ ও স্বতন্ত্র মেয়র পদ প্রার্থী মির মোহাম্মদ শরীফ নারকেল গাছসহ কাউন্সিলর প্রার্থীরা তাদের প্রতিদ্ব›িদ্ব প্রতিক নিয়ে নানান প্রতিশ্রæতীতে ভোট চাইছেন।
জাতীয় নির্বাচনের মতো পৌরসভা নির্বাচনেও আওয়ামীলীগ ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচনী মাঠে নামলেও দ্বিধাদ›দ্ব আর গ্রুপিংএর রাজনীতিতে বিএনপি পিছিয়ে থাকায় অদৃশ্যে তৃতিয় দলের সুযোগ নিচ্ছে স্বতন্ত্র প্রার্থী। তবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী সরাসরি পৌরসভা নির্বাচনেও হস্তক্ষেপ না করলেও নিভৃতে কাজ করছেন পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে। এমনটাই বলছেন উপজেলার রাজনৈতিক বিশ্লেষকগণ। সাড়া বাংলাদেশে উন্নয়ন ও নৌকা মার্কার জয় জয়কার থাকায় চরফ্যাশনেও শুধু পৌরসভা নির্বাচনই নয় আগামী ইউপি নির্বাচনেও দলীয় প্রতীক নৌকার জয় হতে পাড়ে যা এক কৌশলের রাজনীতেকে ইঙ্গিত করেন এসব বিশ্লেষকগণ। এবারের পৌরসভা নির্বাচনে জাতীয় পার্টি (এরশাদ) মনোনীত মেয়র প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করলেও যাচাই বাছাই শেষে বৈধতা পাওয়ার পরেও নির্বাচন করবেননা বলে তিনি তা প্রত্যাহার করে নেন। আবার ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থীর তথ্য যাচাই বাছাই শেষে আপিল বিভাগেও বাতিল হয়ে যায়। তবে বিএনপি মনোনিত প্রার্থীর উল্লেখীত আয়কর তথ্য যাচাই বাছাই শেষে চরফ্যাশন উপজেলা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় প্রাথমীকভাবে বাতিল করলেও বিএনপি প্রার্থী’র আপিলে তাদের মনোনয়ন বৈধতা পায়।
বিশ্লেষকগণ বলছেন,বিএনপি ক্ষমতায় না থাকলেও ক্ষমতায় আসার জন্য তৃণমূলকে গোছাতেই উপজেলা ও পৌরসভাসহ ইউপি নির্বাচনেও ক্ষমতাসীন দলের সাথে প্রতিদ্ব›দ্বীতা করেই তাদের প্রার্থী দিচ্ছেন। তবে বিএনপি ক্ষমতার বাহিরে থাকলেও কেন্দ্রের রাজনীতীতে শৃঙ্খলার অভাবে তৃণমূল পর্যায়ে গ্রুপিং ছড়িয়ে পড়ছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপি’র এক পৌরবাসীন্দা বলেন, চরফ্যাশনে সাবেক এমপি নাজিম উদ্দিন আলম একচ্ছত্র রাজনীতী করলেও বর্তমানে কেন্দ্রীয় রাজনীতিতে শক্ত অবস্থানে রয়েছেন চরফ্যাশনের বাসিন্দা নুরুল ইসলাম নয়ন। যিনি বিএনপির কেন্দ্রীয় যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে থাকায় দলের হাই কমান্ডের সু-নজরে রয়েছেন। আর তাই তিনিও চরফ্যাশন ও মনপুরা তথা ভোলা-৪ আসনের রাজনীতিতে নিজের আধিপত্য ধরে রাখতে তার পছন্দের ব্যক্তি হিসেবে হুমায়ুন কবির শিকদারকে বাছাই করেন। আর তাই হুমায়ুন কবিরকে ধানের শীষ প্রতিকে মনোনয়ন পাইয়ে দিতে হাই কমান্ডে সুপারিস করেন। তবে বিএনপি’র সাবেক এমপি নাজিম উদ্দিন আলম সাবেক মেয়র আমিরুল ইসলাম মিন্টিজকে ধানের শীষ প্রতিকে দলীয়ভাবে মনোনীত করতে বাছাই করলেও দল তাকে মনোনীত না করে নুরুল ইসলাম নয়ন গ্রুপের মনোনীত ব্যক্তি হুমায়ুন কবির শিকদারকেই ধানের শীষ প্রতিকে মনোনীত করে।

স্থানীয় বর্তমান সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব চরফ্যাশন ও মনপুরায় হাজার,হাজার কোটি টাকার বিষ্মিত উন্নয়ন করেছেন। যার প্রতিফলনে পৌর বাসীন্দারা উন্নয়নে অঙ্গীকারবদ্ধ নৌকা প্রতিকের প্রার্থী এসএম মোরশেদকেই ভোট দিয়ে ৪০ হাজার পৌর বাসীন্দার উন্নয়ন আরও প্রসারীত করবে বলে পৌরসভার একাধীক ভোটার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আওয়ামীলীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী এসএম মোরশেদ বলেন, একটি এ-গ্রেড পৌরসভার হাজার হাজার পৌর নাগরীকের দ্বারে বাংলাদেশ সরকারের উন্নয়ন সহায়তা এবং দরিদ্র ও অসহায় পৌর নাগরিকদেরকে সমাজের মূল ধ্বারায় অন্তর্ভূক্ত করতে আমি অঙ্গীকারবদ্ধ হয়েছি। এছাড়াও চরফ্যাশন উপজেলাটি একটি পর্যটন নগড় হওয়ায় এ অঞ্চল ভবিষ্যতের জন্য এক অপার সম্ভাবনাময় আর তাই প্রতি সপ্তাহে হাজার,হাজার পর্যটক চরফ্যাশনে আসছে। ফলে উন্নত শহর ব্যবস্থাপনা ও নতুন আঙ্গীকে পর্যটকদের জন্য নির্মিত অবকাঠামো, জ্যাকব ওয়াটস টাওয়ার,ফ্যাসন স্কয়ার,শিশু বিনোদন পার্কসহ অন্যান্য পর্যটন স্থাপনার ব্যবস্থাপনাও রয়েছে এ পৌরসভার অধিনে। আর তাই পৌর নাগরীকদের পাশাপাশী পর্যটকদের সেবাকেও অগ্রাধীকার দিয়ে সড়কের যানজট নিয়ন্ত্রণ,রাস্তাঘাটের খানাখন্দ সংস্কার ও নতুন সড়ক নির্মানসহ আবাসীক এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে স্থানীয় সরকারের নতুন নতুন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আমি প্রতিশ্রুতীবদ্ধ হয়েছি। এবং আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপির চরফ্যাশনের উন্নয়নকে আরও প্রসারীত করতে উপজেলা আওয়ামীলীগ আমাকে দলীয়ভাবে সিলেক্ট করে। যার ফলে দল আমাকে আমার দীর্ঘদিনের রাজনৈতীক কার্যক্রম বিবেচনা করে দলীয় প্রতিকে মনোনীত করেছে। যেন প্রধানমন্ত্রী’র পক্ষে এলাকাবাসীর সুখে দুঃখে পাশে থাকতে পাড়ি।

ধানের শীষ প্রতিকের বিএনপি প্রার্থী হুমায়ুন কবির শিকদার বলেন, বিএনপি’র সরকার এ অঞ্চলে অনেক উন্নয়ন করেছে। স্কুল,কলেজ,মসজিদ,মাদরাসা, রাস্তাঘাট ব্রিজসহ তৎকালীন পল্লী এলাকায় বিদ্যুতায়নসহ এলাকাবাসীর উন্নয়নে শহর অবকাঠামোয় নানান স্থাপনা নির্মানেও বিএনপি সরকার চরফ্যাশনে সাক্ষর রাখেন। এছাড়াও আমাকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি আমার দীর্ঘকালের ত্যাগ তিতিক্ষার রাজনৈতীক জীবন,দূরদর্শী গুণাবলী, রাজনৈতীক আদর্শ এবং মেধা বিশ্লেষণ করে মনোনীত করেছে। বিএনপি’র লক্ষ্য গণতন্ত্রকে বাঁচানো আর তাই হাই কমান্ডের নির্দেশনায় দল থেকে নির্বাচন করছি। তবে চরফ্যাশন পৌরসভার মাটি ও মানুষের সন্তান হিসেবে যদি আমাকে তাদের পবিত্র আমানত ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে তাহলে পৌর এলাকার সন্ত্রাস,চাঁদাবাজ ও মাদক,ইভটিজিং মুক্ত একটি শহর গড়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি। যা বাস্তবায়নে দলমত নির্বিশেষে ভোটারেরা আমাকে ঐক্যবদ্ধভাবে জয়যুক্ত করবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী অধ্যক্ষ মীর মোহাম্মদ শরীফ হোসেন সাংবাদিককে বলেন, ইনশাআল্লাহ চরফ্যাশন পৌরবাসী আমাকে মেয়র পদে নির্বাচিত করলে, নিজকে জনগণের খেদমতে আত্মনিয়োগ করবো। চরফ্যাশন পৌরসভাকে মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত করে গড়ে তুলতে এবং সরকারের উন্নয়নকে আরও তরান্বীত করতে আমি অঙ্গীকারবদ্ধ। আর তাই জনগণ অবাধ সুষ্ঠ ভোটের পরিবেশ হলে আমাকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবে বলে আমি আশাবাদী।

রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন সাংবাদিককে বলেন, একটি অবাধ ও নিরপেক্ষ সুষ্ঠ নির্বাচন আমরা প্রত্যেকেই কামনা করি। নির্বাচনের পরিবেশ সুষ্ঠ রয়েছে। নির্বাচনী আচরন ও নিতিমালা কেউ যেন ভঙ্গ না করেন এজন্য নির্দেশনা দেয়ার পাশাপাশি ভ্র্যাম্যমান আদালতের টিম মাঠে রয়েছে। নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গ করলে জরিমাানা করা হচ্ছে। প্রত্যেক ভোট কেন্দ্রে অনিয়ম পর্যবেক্ষণ ও নিরাপত্তায় নির্দিষ্ট বাহিনী মোতায়েন থাকবে এ নির্বাচনে। আসন্ন চরফ্যাশন পৌরসভার নির্বাচনে ইলেক্ট্রীক ভোটিং ইভিএম পদ্ধতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ