১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
মুলাদীতে আড়িয়াল খাঁ নদে গোসল করতে নেমে ২ তরুণী নিখোঁজ বাকেরগঞ্জে বসতঘরে মিলল মাটিচাপা অবস্থায় বৃদ্ধার মরদেহ চরফ্যাসনে মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় সাংবাদিক পরিবারের ওপর হামলা, আহত ৪ তালতলীতে বনের ২৫০ পিস লাঠি সহ গ্রেফতার ২ দুমকিতে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গাড়ি ভাঙচুর, থানায় অভিযোগ বৈশাখ উদযাপনে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে পর্যটকের পদচারণায় মুখরিত বাদলপাড়া একতা গোরস্থানে চিরনিদ্রায় সায়িত সাংবাদিক মামুনের ‘মা’ মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় - দুলারহাটে সাংবাদিক পরিবারের ওপর হামলা আহত-৪ বরিশাল শেবাচিমের প্রিজন সেলে আসামিকে পিটিয়ে হত্যা সাংবাদিক মামুনের মায়ের মৃত্যুতে বরিশাল তরুণ সাংবাদিক ঐক্য পরিষদের শোক

নবজাতককে হাসপাতালে রেখে বাবা-মা লাপাত্তা

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

বরিশাল বাণী নিউজ–

শ্বাসকষ্টজনিত অসুখের কথা বলে হাসপাতালে ভর্তির পর ফুটফুটে এক নবজাতককে রেখে পালিয়ে গেছেন তার বাবা-মা। এ ঘটনায় হাসপাতালজুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।বর্তমানে ওই নবজাতকটি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের (শিশু ওয়ার্ড) বেডে নার্সদের তত্ত্বাবধানে রয়েছে।
রামেক হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে কর্তব্যরত নার্সদের ভাষ্য মতে, শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বাবা-মা পরিচয় দিয়ে মধ্য বয়সী দুজন নারী-পুরুষ শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার কথা বলে ওই নবজাতককে এ ওয়ার্ডে ভর্তি করেন। ছেলে শিশু নবজাতকের বয়স কয়েকদিন হবে। ভর্তির পর চিকিৎসার কাগজপত্র ও প্রয়োজনীয় ওষুধ নিয়ে আসার কথা বলে তারা এক এক করে ওয়ার্ড থেকে বাইরে বের হন। এরপরই তারা হাসপাতাল থেকে পালান। ওইদিন থেকে সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল পর্যন্ত তারা আর রামেক হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে ফিরে আসেননি। তাই শিশুটি এখন হাসপাতালে কর্তব্যরত নার্সদের তত্ত্বাবধানে রয়েছে। নবজাতকটি পুরোপুরি সুস্থ আছে। এরই মধ্যে ওই শিশুটিকে দত্তক নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন অনেকে। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নবজাতকটিকে আদালতের মাধ্যমে সরকারি ছোটমনি নিবাসে হস্তান্তর করতে চায়। এ ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রাজপাড়া থানায় সাধারণ ডায়েরিও (জিডি) করেছে।

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইমার্জেন্সি মেডিকেল অফিসার (ইএমও) ডা. শংকর কে বিশ্বাস জানান, ওই নবজাতককে হাসপাতালে ভর্তি করেই তার বাবা-মা পরিচয়দানকারী মধ্যবয়সী দুই নারী-পুরুষ লাপাত্তা। শেষ পর্যন্ত তারা কেউ না এলে বা তাদের আজকালের মধ্যে খুঁজে পাওয়া না গেলে আদালতের মাধ্যমে নবজাতককে সমাজসেবা অধিদপ্তরের ছোটমনি নিবাসে হস্তান্তর করা হবে। সেই পর্যন্ত শিশুটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দায়িত্বেই থাকবে। আর ওয়ার্ডের নার্সরা ওই শিশুটির সার্বক্ষণিক খেয়াল রাখছেন।

সর্বশেষ