১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

বরিশাল নগরীতে চাঁদা না দেওয়ায় ব্যবসায়ীর উপর হামলা

বরিশাল বাণীঃ রিশাল নগরীর কাউনিয়া থানাধীন পলাশপুর এলাকায় চাঁদার দাবিতে ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দক্ষিণ পলাশপুরের নুর নগর (ডকইয়ার্ড) ব্রীজ সংলগ্ন স্থানে এ ঘটনা ঘটে।
আহতের নাম জাহিদ সিকদার সে ওই এলাকার খলিল শিকদারের ছেলে এবং বরিশাল সিকদার এন্ড সন্স কসমেটিক প্রসাধনী সামগ্রির ডিস্ট্রিবিউটর। বর্তমানে জাহিদ গুরুতর অবস্থায় বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

আহত জাহিদ জানান, জাহিদ বরিশাল নগরীতে কসমেটিক প্রসাধনীর ডিস্ট্রিবিউটর নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।
সম্প্রতি পলাশপুর এলাকার আজাহার দেওয়ানের ছেলে রনি দেওয়ান ও তার সহযোগী সমিরসহ কয়েকজন মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে।
চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে রনি, সমির সহ তার সহযোগীরা জাহিদকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি সহ খুন-জখমের হুমকি দেয়।

বিষয়টি নিয়ে জাহিদ ও তার পরিবার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে রনি, সমীর ও তাঁর সহযোগীরা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে যায়।
এরই জের ধরে ঘটনার দিন সন্ধ্যায় নুরনগর ডকইয়ার্ড ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় পরিকল্পিতভাবে জাহিদ শিকদারের উপর অতর্কিত হামলা চালায় সমীর, রনি দেওয়ান ও তার ছোট ভাই জনি দেওয়ানসহ অজ্ঞাত কয়েকজন।

স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে শেবাচিমে নিয়ে যাওয়ার সময় সেখানেও চিকিৎসাসেবায় বাধা দেওয়া হয় রনি সহ অন্যান্য সহযোগীরা।

পরে পরিবার সহযোগীরা আহত জাহিদকে উদ্ধার করে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করেন।
জাহিদের অবস্থা খুবই গুরুতর, তবে অবস্থার অবনতি হলে যেকোনো সময় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা যেতে পারে বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।
জাহিদের বাবা খলিল সিকদার জানান, চাঁদাবাজদের ভয়ে জাহিদের পরিবার আতঙ্কে রয়েছে। তারা রনি, জনি, সমীরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

এ বিষয়ে কাউনিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ জানান, এ সংক্রান্ত কোন অভিযোগ এখনো পায়নি, তবে খোঁজ নিচ্ছি।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ