৬ই জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

চরফ্যাশনে শেষ হয়েছে প্রথম ডিজিটাল জনশুমারি বাদ পড়েনি ভাসমান ও ছিন্নমূল মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক : সারাদেশের ন্যায় চরফ্যাশনেও শেষ হয়েছে ডিজিটাল জনশুমারি ও গৃহগননা। মঙ্গলবার (২১জুন) রাত ১২টায় শেষ হয় এ জনশুমারি ও গৃহগননা কার্যক্রম। চরফ্যাশন উপজেলার পৌরসভাসহ ২১টি ইউনিয়নে উপজেলা শুমারি সমন্বয়কারি অফিসারসহ ৯জন জোনাল অফিসার ও ২২০জন সুপারভাইজার এবং ৯৯৪জন গননাকারী ডিজিটাল এ শুমারি কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন। প্রত্যেক গননাকারীকে ৪দিন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দেয়া হয় একটি করে ট্যাব (কম্পিউটার) ,ব্যাগ,ছাতা ও ইউনিফর্ম। এ গননায় প্রত্যেকটি পরিবার থেকে নেয়া হয়েছে মোট ৩৫টি তথ্য। বাদ যায়নি ভাসমান ও ছিন্নমূল মানুষও। গত ১৬জুন বুধবার সকালে পৌরসভা ৪নং ওয়ার্ডে খানা (একই রান্নায় খাবার খাওয়া সকল ব্যাক্তি) গননার মধ্য দিয়ে ট্যাবের মাধ্যমে ডিজিটাল পদ্ধতিতে শুমারি কর্যক্রম উদ্ধোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল নোমান রাহুল। জনশুমারি ও গৃহগননা ২০২২ প্রসঙ্গে নির্বাহী কর্মকর্তা আল নোমান বলেন, বাংলাদেশ সরকারের রুপকল্প ২০৪১,পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা,টেকসই উন্নয়নসহ দেশের অন্যন্য উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়ন ও মূল্যায়নে দেশের প্রথম ডিজিটাল এ শুমারির মাধ্যমে দেশের গৃহ ও তথ্য গননার মধ্য দিয়েই সরকার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারবে বলে মনে করি। এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা শুমারি সমন্বয়কারী পলাশ চন্দ্র দাস,জোনাল অফিসার মো.মুসলিম হোসাইন ও সুপারভাইজার মো.রাসেল প্রমুখ। সারাদেশে গত ১৬ জুন বুধবার থেকে শুরু হয়ে ২১জুন মঙ্গলবার পর্যন্ত সপ্তাহ ব্যাপী এ জনশুমারি কার্যক্রম শেষ হয়।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ