১৫ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
বঙ্গোপসাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপঃ কুয়াকাটা সৈকত থেকে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে ক্ষুদ্র প্রতিষ্ঠান চর জহিরুদ্দিনের মোশাররফ হোসেন কাশেমকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন বরিশালে বৃষ্টি-জোয়ারের পানিতে তলিয়ে গেছে বিভিন্ন এলাকা ! বরিশালে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বৃ্দ্ধকে মারধর, শেবাচিমে ভর্তি ! রাঙ্গাবালীতে তেল সারের মূল্যবৃদ্ধিতে কৃষকের গলার কাঁটা প্রধানমন্ত্রীর দেয়া আশ্রয়নের ঘরে থাকছে না বেশিরভাগ সুবিধাভোগীরা, ঝুলছে তালা মনপুরায় লঘুচাপ ও পূর্ণিমার জ্যো’র প্রভাবে মেঘনার জোয়ারে নিম্মাঞ্চল প্লাবিত মনপুরায় লঘুচাপ ও পূর্ণিমার জ্যো’র প্রভাবে মেঘনার জোয়ারে নিম্মাঞ্চল প্লাবিত প্রধানমন্ত্রীর দেয়া আশ্রয়নের ঘরে থাকছে না বেশিরভাগ সুবিধাভোগীরা, ঝুলছে তালা ঝালকাঠিতে অগ্নিদগ্ধ লঞ্চ এমভি অভিযান-১০ মালিককে ফেরত

দরিদ্র ছানাউল ও অসহায় আউয়াল এর পাশে বরিশাল জেলা প্রশাসক

বরিশাল বাণীঃ মোঃ ছানাউল হক বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা ছোট বেলায় ১ বছর বয়সে বাড়ির উঠনে ধান সিদ্ধ করার চুলায় পড়ে গিয়ে দুইটি পা আগুনে পুরে যায়। অল্পের জন্য জীবনে বেচে গেলেও ১৪ বছর আগুনে পোড়া ক্ষত-র সাথে যুদ্ধ করে অবশেষ পা দুটো কেটে ফেলতে হয়। জীবনের তরে পঙ্গু হয়ে যায় ছানাউল। জীবনের সাথে অনবরত যুদ্ধ করে পড়াশোনা চালিয়ে যান এবং অবশেষে ডিগ্রি পাশ করেন। পাশ করে একটি এনজিওতে চাকরি করতেন বিবাহিত জীবনে তার স্ত্রী, ১ পুত্র এবং ১ কন্যা সন্তান নিয়ে ভালোভাবেই জীবন কাটাতে থাকে তিনি। এরমধ্যে এনজিও প্রোজেক্ট শেষ হয়ে গেলে বিপাকে পড়েন ছানাউল ও তার পরিবার। বিষয়টি জেলা প্রশাসক বরিশাল জসীম উদ্দীন হায়দার এর নজরে আসলে আজ ৫ জুলাই মঙ্গলবার দুপুরে সার্কিট হাউজ সম্মেলন কক্ষে ব্যবসা করার জন্য তার হাতে নগদ ২০ হাজার টাকা তুলে দেন জেলা প্রশাসক বরিশাল জসীম উদ্দীন হায়দার। এসময় মোঃ আব্দুল আউয়াল হোসেন নামের এক সবজি বিক্রেতা কে ওজন যন্ত্র ও নগদ ৩ হাজার টাকা সহায়তা প্রদান করে জেলা প্রশাসক বরিশাল। আউয়াল ঢাকায় একটি ফ্যাশন হাউজ চাকরি করতেন। করোনাকালিন সময়ে লকডাউন চলাকালীন তিনি বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার চরাদী ইউনিয়নে নিজ বাড়িতে ফেরার সময় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা ডান হাত ভেঙ্গে যায়। অপারেশন করে হাতে একটি বড়ো রড দিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন সে কিছুটা সুস্থ হলেও সাবা বিক জীবনে ফিরতে পারছেনা। আউয়াল এর ১ ছেলে ও দুই মেয়েকে নিয়ে কষ্টে জীবন অতিবাহিত করছে। জীবিকা নির্বাহের জন্য বর্তমানে সে সবজি বিক্রি করে পরিবারের মুখে খাবার জোটাচ্ছ। বিষয়টি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সহচরী এর নজরে আসলে জেলা প্রশাসক বরিশাল এর নজরে আনলে আজ তাকে এই সহযোগিতা করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার জেলা প্রশাসকের কার্যালয় বরিশাল মুশফিকুর রহমান,
অংমাচিং মারমা, প্রবেশন অফিসার জেলা প্রশাসকের কার্যালয় বরিশাল সাজ্জাদ পারভেজসহ সহচরী সংগঠনের সদস্য উপস্থিত ছিলেন। জেলা প্রশাসক বরিশাল জসীম উদ্দীন হায়দার নিজ হাতে এই অর্থ সহায়তা ও পরিমাপ যন্ত্র তুলে দেন দরিদ্র ছানাউল ও অসহায় আউয়াল এর হাতে।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ