৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সৌদিআরব রিয়াদ দূতাবাসে কুটনীতিকদের অংশগ্রহনে ৫১তম সশস্ত্র বাহিনি দিবস উদযাপন

বরিশাল বাণী: সৌদি আরবে কুটনৈতিক পাড়ায় অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের বঙ্গবন্ধু চত্তরে বিভিন্ন দেশের কুটনীতিক ও সামরিক কুটনীতিকদের স্ব পরিবারের অংশগ্রহনের মধ্য দিয়ে কেক কাটা সহ বর্নিল আয়োজনে বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনির ৫১তম দিবস উদযাপন করা হয়।
সৌদি আরবের বাংলাদেশ দূতাবাসের মান্যবর রাষ্ট্রদূতের ডিফেন্স এট্যাশে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মাদ গোলাম ফারুকের সঞ্চালনায় সশস্ত্র বাহিনি দিবসের উদ্বোধন করেন মান্যবর রাষ্ট্রদূত ডক্টর মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বিপিএম বার। এসময় উপস্থিত ছিলেন- সৌদি আরবের কুটনৈতিক কোরের ডিন জিবুতির রাষ্ট্রদূত দায়া আদদীন সাঈদ, প্রধান অতিথি ছিলেন- সৌদি আরবের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এয়ার ভাইস মার্শাল খালেদ বিন সালামাহ আতিকুল্লাহ আল লোকমানি।
আরো উপস্থিত ছিলেন- দূতাবাস মিশন উপপ্রধান- আবুল হাসান মৃর্ধা। কন্সুলার এস এম রাকিব উল্রাহ।কার্যালয় প্রধান ও কন্সুলার মোঃ বেলাল হোসেন। প্রবাসী নেতা আব্দুস সালাম।এম আর মাহবুব। এম এ জলিল। মোঃ মনিরুল ইসলাম প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের কেক কাটার পর, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনির মুক্তিযুদ্ধের ভুমিকা সহ সমগ্র ইতিহাস সম্বলিত ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়। মান্যবর রাষ্ট্রদূত সশস্ত্র বাহিনির উল্লেখ্যযোগ্য সফলতার নানা দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন।
সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রদূত বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সশস্ত্র বাহিনী ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংগ্রাম ও প্রতিরোধের মাধ্যমে আমাদের মহান স্বাধীনতা অর্জিত হয়েছে। ১৯৭১ সালের এই দিনে বাংলাদেশের সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সম্মিলিত আক্রমনে পাক হানাদার বাহিনী দিশেহারা হয়ে পড়ে যা আমাদের বিজয় অর্জনকে ত্বরান্বিত করে। রাষ্ট্রদূত বলেন আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে সশস্ত্র বাহিনীর অবদান জাতি গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করে।
রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বিপিএম (বার) বলেন, সশস্ত্র বাহিনী বিশ্ব শান্তি রক্ষায় অনবদ্য ভূমিকা পালন করছে যা বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয়। পৃথিবীর বিভিন্ন সংকট বহুল দেশে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর শান্তিরক্ষীরা জাতিসংঘের শান্তি মিশনে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করছে। বর্তমানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে প্রায় সাত হাজার বাংলাদেশী শান্তিরক্ষী কর্মরত রয়েছে। এ সময় বিভিন্ন শান্তি মিশনে দায়িত্ব পালনকালে নিহত ১৬৪ জন সেনা কর্মকর্তা ও সেনা সদস্যদের গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করেন রাষ্ট্রদূত। রাষ্ট্রদূত বলেন, বর্তমান সরকার সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে ফোর্সেস গোল -২০৩০ প্রণয়ন করেছে যা সশস্ত্র বাহিনীকে আরও দক্ষ, আধুনিক ও গতিশীল করবে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সুগঠিত, আত্মবিশ্বাসী ও অত্যন্ত পেশাদার যারা আমাদের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় নিয়োজিত রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে বিশ্বাস ও আস্থার সম্পর্ক রয়েছে এবং বাংলাদেশ সৌদি নেতৃত্বাধীন ইসলামিক মিলিটারি কাউন্টার টেরোরিজম কোয়ালিশন (আইএমসিটিসি) এর গর্বিত সদস্য। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতির কথা উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বলেন, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে সহযোগিতাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে নতুন সম্পৃক্ততা ও সহযোগিতার মাধ্যমে সৌদি ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সৌদি আরবের সাথে একযোগে কাজ করতে প্রস্তুত রয়েছে।
দূতাবাসের ডিফেন্স এ্যাটাশে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ গোলাম ফারুক অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন। এ সময় সশস্ত্র বাহিনীর বিভিন্ন কার্যক্রম, ইতিহাস, ঐতিহ্য নিয়ে নির্মিত একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানে দূতাবাসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ