৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
দেশের বেষ্ট হসপিটালেটি এন্ড ট্যুরিজম লিডার হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছেন ভোলার কৃতি সন্তান সাখাওয়াত ভোলায় মাছ ধরতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে প্রাণ গেলো যুবকের বরিশালে সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে আ.লীগের শান্তি সমাবেশ মানুষকে গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য বিএনপি আন্দোলন করছে : মঈন খান বরিশালে কোষ্টগার্ডের অভিযানে দুইদিনে ৭০ মন জাটকা জব্দ দূষণমুক্ত শিল্পকারখানা স্থাপন হবে আমাদের আগামী শিল্পবিপ্লব : বরিশালে শিল্পমন্ত্রী পাথরঘাটায় দুই ট্রলারের ধাক্কায় বাবার সামনেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন ছেলে আগৈলঝাড়ায় স্কুলড্রেস কেনার জমানো টাকা ভেঙে ফেলায় কিশোরীর আত্মহত্যা এ সরকারের সময়ে বাংলাদেশে যে উন্নয়ন হয়েছে তা ইতিহাসে বিরল : তোফায়েল এবার ববির খাবারে পাওয়া গেল সিগারেটের ফিল্টার!

ঢাকায় মোড়ে মোড়ে তল্লাশী ! বিএনপির মহাসমাবে কাল

বাণী ডেস্ক: আগামীকাল শনিবার (১০ ডিসেম্বর) রাজধানী ঢাকায় মহা সমাবেশ করার কথা রয়েছে বিএনপির। তার আগেই শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) গ্রেফতার হয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও কেন্দ্রীয় নেতা মির্জা আব্বাস।
তাদের আদালতে হাজির করা হবে। এ অবস্থায় বিএনপির সমাবেশ আদৌ হবে কিনা- প্রশ্ন থেকে যায়। এদিকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ঢাকাকে শৃঙ্খল রাখতে বদ্ধপরিকর। তাই কোনো বিশৃঙ্খলা বা নাশকতামূলক পরিস্থিতি যাতে সৃষ্টি না হয়, তৎপর রয়েছে তাদের সব ইউনিট।
জানা গেছে, রাজধানীর প্রবেশপথগুলোয় নেওয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) ও পুলিশের একাধিক টিম রাজধানীর প্রবেশ পথগুলোয় চেকপোস্ট স্থাপন করে তল্লাশি চালাচ্ছে। আব্দুল্লাহপুর, গাবতলি, যাত্রাবাড়ী, ডেমরা, গুলিস্তান ও বাবুবাজারসহ বিভিন্ন স্থানেও পুলিশের চেকপোস্ট বসিয়েছে। মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকার, বাস থামিয়ে ভেতরে তল্লাশি করা হচ্ছে এসব স্থানে। কোনো যাত্রীর সঙ্গে ব্যাগ থাকলে সেটিও যাচাই করা হচ্ছে।
ঢাকার অলি-গলি, মোড়ে টহল দিচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদ্যরা। সন্দেহভাজনদের গতিরোধ করে তল্লাশি করা হচ্ছে। ঢাকার বাইরে থেকে আসা যানবাহনেও তল্লাশি চলছে। মোটরসাইকেল চালকদের পরিচয় জেনে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে ঢাকায়।
রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ সরকারি-বেসরকারি স্থাপনা ও অফিস ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনেও রয়েছে র‌্যাব-পুলিশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা।
টঙ্গী থেকে উত্তরা পর্যন্ত বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (বিআরটি) প্রকল্পের টঙ্গী সেতু দিয়ে যারা ঢাকায় আসছেন তাদেরসহ পরিবহনগুলোয় ব্যাপক তল্লাশি চালানো হচ্ছে। উত্তরা বিএনএস সেন্টারের সামনে সেতুর মুখে রয়েছে চেকপোস্টে।
নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও এর আশপাশের এলাকায় রাখা হয়েছে পুলিশের বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। নয়াপল্টনের নাইটিংগেল মোড় থেকে ফকিরাপুল মোড় পর্যন্ত সড়কের সবকটি গলিতে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরদারি। পর্যাপ্ত সিসিটিভি ক্যামেরার মাধ্যমে সার্বক্ষণিক নজরদারি চলছে।
এসব তথ্য নিশ্চিত করে পুলিশ জানিয়েছে, পুরো রাজধানীকে একটি নিরাপত্তা সার্কিটের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। পোশাকে-সাদা পোশাকে ব্যাপক নজরদারি চলছে-চলবে। ১০ ডিসেম্বর বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে রাজধানীতে যাতে অন্য কোনো গোষ্ঠী সুযোগ নিতে না পারে সেজন্য পুলিশের প্রতিটি থানা পুলিশের পাশাপাশি গোয়েন্দা পুলিশ ও সাইবার ইউনিট সার্বক্ষণিক নজরদারি করছে। বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি যাতে সৃষ্টি না হয়, সেটিও নজরে রাখা হয়েছে। গোয়েন্দা পুলিশের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ডগ স্কোয়াড, সোয়াট টিম প্রস্তুত আছে।
এ বিষয়ে ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. ফারুক হোসেন বলেন, রাজধানীতে যাতে কোনো বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি কেউ করতে না পারে সেজন্য পুলিশের সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।
র‌্যাব জানিয়েছে, শনিবার দিনটিকে ঘিরে বিভিন্ন দুষ্কৃতিকারী ও সুযোগ সন্ধানীদের বিশৃঙ্খলা-নাশকতার মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির তৎপরতা রোধে তাদের গোয়েন্দা নজরদারি ও নিয়মিত টহল কার্যক্রম চলমান। যেকোনো পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বাহিনীর স্পেশাল ফোর্স টিম, ডগ স্কোয়াড, বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিট ও হেলিকপ্টার সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রয়েছে।
এদিকে সাইবার জগতে যাতে কেউ কোনো গুজব বা অপপ্রচার ছড়াতে না পারে সে জন্য র‌্যাবের সাইবার ইউনিটের সদস্যরা প্রস্তুত, তাদের কাজও চলমান।
র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বাংলানিউজকে বলেন, নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে র‌্যাব ফোর্সেস। যেকোনো ধরণের বিশৃঙ্খলা, নাশকতা রোধ ও আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি রয়েছে। জনগণের নিরাপত্তা ও জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নিয়মিত টহল কার্যক্রম জোরদার রয়েছে।
যেকোনো ধরণের হামলা ও নাশকতা রোধে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা, স্থান ও প্রবেশ পথসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে র‌্যাবের চেকপোস্টে নিয়মিত তল্লাশি কার্যক্রম চলমান রয়েছে বলেও জানান তিনি।
গত ১ ডিসেম্বর থেকে আগামী ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত রাজধানীতে বিশেষ অভিযান পরিচালনা চালু রেখেছে ডিএমপি। রাজধানীর ৫০টি থানা ও গোয়েন্দা পুলিশ সার্বক্ষণিক নজরদারি ও অভিযান চালু রেখেছে।
বিশেষ এ অভিযান ও চেকপোস্ট সম্পর্কে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, ডিসেম্বর মাসে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস, বিজয় দিবস ও বড়দিনসহ একাধিক জাতীয় কর্মসূচি রয়েছে। এ কারণে গত ১ ডিসেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে বিশেষ অভিযান ও চেকপোস্ট পরিচালিত হচ্ছে।

বাংলানিউজ

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ