ট্রাম্পের কাছে নালিশ করায় মিয়ানমারে খ্রিস্টান নেতার বিরুদ্ধে মামলা

ট্রাম্পের কাছে নালিশ করায় মিয়ানমারে খ্রিস্টান নেতার বিরুদ্ধে মামলা

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সংখ্যালঘুদের ওপর সামরিক সরকারের নির্যাতন-নিপীড়ন সম্পর্কে জানানোয় মিয়ানমারে স্থানীয় এক খ্রিস্টান ধর্মীয় নেতার বিরুদ্ধে মামলা করেছে দেশটির সেনাবাহিনী।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার ব্যক্তিরা চলতি বছরের জুলাই মাসে ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করেন। সংঘাতপূর্ণ কাচিন রাজ্যের বাসিন্দা ওই ধর্মীয় নেতার নাম হাকালাম স্যামসন।২৭টি দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন স্যামসনও।

এ সময় ট্রাম্পের কাছে অভিযোগ করে বলেন, ‘মিয়ানমারের সামরিক সরকারের দ্বারা খ্রিস্টানরা নিপীড়িত ও নির্যাতিত হচ্ছেন।’ সামরিক বাহিনীর কয়েকজন শীর্ষ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় ট্রাম্পকে ধন্যবাদও জানান স্যামসন।

ডয়চে ভেলে জানায়, সরকারের বিরুদ্ধে ট্রাম্পের কাছে নালিশ করায় সপ্তাহখানেক আগে স্যামসনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। এ বিষয়ে স্যামসান বলেন, ‘আমার মনে হয়, সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে ট্রাম্পকে আমার সমর্থনের কথা জানানোয় আমাকে অভিযুক্ত করার চেষ্টা চলছে।’

এদিকে মামলার খবরে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মর্গান ওর্টাগাস বলেন, ‘এ মামলার মাধ্যমে অন্যায়ভাবে তার বাকস্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা চলছে।’ স্যামসনকে গ্রেফতারের সিদ্ধান্ত হলে তা ‘খুবই উদ্বেগের’ হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

স্যামসন যে অনুষ্ঠানে ট্রাম্পের কাছে অভিযোগ করেছিলেন সেখানে বাংলাদেশের প্রিয়া সাহাও উপস্থিত ছিলেন। তার বক্তব্যও বাংলাদেশে চরম বিতর্কের সৃষ্টি করে।

বিতর্কিত প্রিয়া সাহা ট্রাম্পকে বলেছিলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে ৩ কোটি ৭০ লাখ (৩৭ মিলিয়ন) সংখ্যালঘু হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ‘নিখোঁজ’ (ডিসঅ্যাপিয়ার্ড) হয়ে গেছে। এখনও সেখানে ১ কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু মানুষ থাকে। আমি আমার বাড়ি হারিয়েছি। তারা বাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে। আমার জমি ছিনিয়ে নিয়েছে কিন্তু কোনো বিচার হয়নি।’

159 total views, 6 views today

Print Friendly, PDF & Email

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

Comments are closed.







© All rights reserved © 2017 Barisal Bani