রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০, ০৮:০০ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
বামনায় কৃষকের ধান বিক্রিতে ভোগান্তি বাংলাদেশ জলসীমায় ২৬ ভারতীয় জেলে আটক বরিশালে আইনজীবি সমিতির নির্বাচনে সদস্য পদপ্রার্থী ইশতিয়াক কবির রকি,সকলের দোয়া কামনা সুরভী-৯ থেকে নিখোঁজ হওয়া কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার চরফ্যাশনে বালুবাহী জাহাজ থেকে পড়ে সুকানী নিখোঁজ বুখাইনগরে ভেজাল বিরোধী অভিযানে ৫ প্রতিষ্ঠানকে অর্থদন্ড বাবুগঞ্জ-মুলাদীতে সারওয়ার-নুরজাহান ফাউন্ডেশন’র উদ্দ্যেগে শীতবস্ত্র বিতরণ বরিশালে রাতের আধারে মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ পাথরঘাটায় স্কুল ফাঁকি দিতে গিয়ে পরীক্ষার্থী আহত কৃষিবিদ আঃ মান্নান এমপি মারা গেছেন মাদারীপুরে ৪ জন উদ্যোক্তাকে সংবর্ধনা প্রদান বর্তমান সরকারের আমলে দেশের ক্রীড়াঙ্গনে ব্যপক উন্নয়ন হয়েছে-গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ঝালকাঠি রির্পোটাস ইউনিটির নতুন কমিটি গঠন চরফ্যাশনে অগ্নিকান্ডে ২২ দোকান পুড়ে ছাই ‘র‌্যাব’ এর একমাত্র নারী সিও আতিকা ইসলাম জাসদ নেতা মোহসীনের প্রচেষ্টায় কাটাদিয়া খেয়াঘাটে আসছে ফেরী চরফ্যাশনে ২০ বছরের পুরনো বন্ধুদের মিলন মেলা “নিজেই নিজের শত্রু” : — মোহাম্মদ এমরান বরগুনায় ছেলে না হওয়ায় ৪০ দিনের মেয়েকে পানিতে ফেলে হত্যা উজিরপুরে ডাঃ আকবর হোসেন মিঞার স্মরনে আলোচনা সভা
জন্মদিনের উন্মাদনায় যেনো বিকৃত মানুষিকতার বহিঃপ্রকাশ না ঘটে–আরিফ সুমন

জন্মদিনের উন্মাদনায় যেনো বিকৃত মানুষিকতার বহিঃপ্রকাশ না ঘটে–আরিফ সুমন

                                                                         বিশেষ কলাম
জন্মদিন বিষয়টি ইসলাম প্রতক্ষ্য বা পরোক্ষভাবে কখনই সমর্থন করেনি। যুগের আধূনিকতায় অনান্য ধর্ম্মালম্বীদের রেওয়াজনুযায়ী এখন তা সব ধর্ম্মের সাওয়াল পাওয়ালদের মধ্যে ঢুকে পড়েছে।  জন্মদিন পালন কলিকালে যেনো বিস্ফোরন ঘটতে চলেছে। সমস্যা যে তীব্র হতে চলেছে তা পাঠককূল একটু পরেই জানতে পারবেন।চোখের সামনে টিনএজ বা যুবক যুবতিদের জন্মদিন নিয়ে হাল আমলে যে উন্মাদনায় মত্ত হয় সত্যি তা বিবেক কে কাঠগড়ায় দাড় করায়।আজকাল বরিশাল নগরীর মুক্তিযোদ্ধা পার্ক,ত্রিশ গোডাউন,বেলস পার্ক ময়দানের বিভিন্ন স্থানে গুটি কয়েক ছেলে/মেয়ে মিলে গোত্রের যে কারো একজনের জন্ম দিন হইহুল্লর করে পালন করে থাকে যে দৃর্শ্য হারহামেশাই আমাদের চোখে পড়ে।অথচ বাড়িতে তাদের অভিভাবকরা পর্যন্ত এই জন্ম দিনের খবর জানে না।অবাক করার বিষয় হচ্ছে এরা অনেকেই বাবা মায়ের রাখা নামটি পর্যন্ত পাল্টিয়ে নিজেদের ইচ্ছে মতো নাম দিয়ে ফেইজবুক বা স্কুল কলেজে বন্ধুদের মধ্যে তা ব্যবহার করে। অনেকেই বলে এটা অপসংস্কৃতি। বড়ই আফসোস আশ্চার্যের বিষয় হচ্ছে নগরীর শীর্ষস্থানীয় স্কুল কলেজের ছেলে/মেয়েরা এই দলে বর্তমানে সামিল হয়েছে।যারা সবাই মেধাবী এবং ভালো ভালো পরিবার থেকে উঠে এসছে বলে আমরা জানি।
অনেক সময় অনিচ্ছা সত্যে ও অনুরোধের ঢেুকর গিলতে গিয়ে চলমান জীবনে মাঝে মাঝে আমাদের ও স্বজনদের কারো কারো জন্ম দিনের নিমন্ত্রনায় যেতে হয়।
তা হয়তো ক্যান্ডেল(মোম) জ্বালিয়ে একটি কেক এর বিসর্জন দিয়ে উপস্থিত মেহমানদের করতালির মাধ্যমে জন্মদিনটি উৎযাপন করি। বড় জোড় আরো কিছু খাওয়া দাওয়ার পর্ব থাকে ব্যস এই।
ভয়াবহ ব্যাপার হচ্ছে আজকাল অনেকেই কাচাঁ ডিম ভেঙ্গে তাতে ময়দা মিলিয়ে তা যার জন্মদিন তার মাথা,মুখমন্ডল সহ সমস্ত শরীলে মেখে দিয়ে উল্লাসে ফেটে পড়ার নামই জন্মদিন পালন।
গতকালই একটি প্রথম সারীর স্কুলের পাশে বসে চায়ের দোকানে চা খাচ্ছিলাম আর দোকানীর সাথে মনোযোগ দিয়ে কথা বলছিলাম। এমন সময় গুটি কয়েক ছেলে একটি ছেলেকে ধরে হইহুল্লুর অবস্থা।তাদের গোত্রের কেউ কেউ দোকান থেকে ডিম আনতে থাকলো কেউ তা ভেঙ্গে ময়দা মিলিয়ে ছেলেটাকে মাথা সহ সমস্ত শরীলে তা মাখাচ্ছে।কয়েকজন পথচারী তাদের দিকে অবাক হয়ে তাকিয়ে আছে প্রশ্নবোধক চিহ্র নিয়ে যে ঘটনা কি-? আমাদের সবার দৃষ্টি তখন সে দিকে।জন্মদিনের উন্মাদনায় এই ছেলেদের কারো খেয়াল পর্যন্ত নেই যে তাদের কার্যক্রমে পাশ্ববর্তিরা বিরক্ত হচ্ছে।তারা ড্যাম কেয়ার অবস্থা।এ রকম দহরমমহরম ঘন্টাখানেক চললো।ততোখনে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ফুটবল খেলা দেখতে যে কয়জন দর্শক আসে তার চেয়ে বেশি উৎসুক দর্শক তাকিয়ে তা দেখলো।
পরক্ষনে দোকানদার বললো ভাই এ তো গেলো ছেলেদের বাদরামীর কথা।কয়েকদিন আগে নাইন টেন এর বেশ কয়েকটি মেয়ে ৪০ টি ডিম এনে সকাল বেলা আমার দোকানে রেখে যায়।সেখান থেকে আমি দুইটি ডিম সিদ্ধ দিয়ে খেয়েছি তা ওরা টের পাইনি। খেয়াল করার সেই সময় ওদের ছিল না। যাই হোক ঐ দিন এদের দলের একটি মেয়ের জন্মদিন ছিল। বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল ঘোষনার পরে স্কুল ভবনের ছাদে গিয়ে সেই ৩৮ টি ডিম এবং আমার দোকান থেকে ময়দা নিয়ে তা যার জন্মদিন তার মাথা মুখমন্ডল সহ সারা শরীলে মেখে দেয়। কি বিশ্রি ব্যাপার ।
এভাবে যদি জন্ম দিনের উৎল্লাস করা হয় তাহলে বলবো তোমরাই কি ডিমের দাম বাড়াচ্ছো-? কয়েক দিন আগে ও এক কুড়ি ডিমের দাম ছিল ১২০ টাকা তা এখন ১৬০ টাকায় পৌসেছে তা কি তোমরা জানো-?
দুঃখজনক ব্যাপার হচ্ছে একজন চায়ের দোকানদার যেখানে তোমাদের কাজটাকে সমর্থন করে না সেখানে তোমাদের মতো মেধাবী সন্তানেরা কোন বিকৃত্বতায়,কোন উন্মাদনায় এই বিকৃত মনমানুষিকতার প্রয়োগ করে চলেছো-?
হে কিশোর,হে যুবক/যুবতি একবার ও কি ভেবেছো এই উন্মাদনায় ঘটে যেতে পারে অপ্রত্যাশিত কতো করুন ঘটনা-? একবার ভেবেছো তোমার পিতা মাতা তাদের সর্বস্ব দিয়ে তোমাকে শিক্ষাঙ্গনে পাঠাচ্ছে পরিপূর্ন করে।
তুমি কি জানো তোমার বাবা/মা মাস শেষে তোমার কোচিং ফি জামা,প্যান্ট,জুতা কিনে দিয়ে নিজের রোগের চিকিৎসা পর্যন্ত করাতে পারছে না।
সেই তুমি যুগের সাথে তাল মিলিয়ে জীবন কে গুলিয়ে ফেলো কোন চেতনায়-?পথ পাড়ি দিতে এখনো যে অনেক বাকি।
মনে রেখো জন্ম দিনের উন্মাদনায় যেনো
আমাদের বিকৃত মানুষিকতার বহিঃপ্রকাশ না ঘটে

লেখকঃ আরিফ সুমন,সাংবাদিক ও কলামিষ্ট।

555 total views, 3 views today

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন







© All rights reserved © 2014 barisalbani
Design By Rana