১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

তালতলীতে ২০ বছর আগে মৃত নারীকে দিয়ে দলিল প্রতারণার দায়ে গ্রেফতার ২

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

হারুন অর রশিদ,
আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধিঃ
বরগুনার তালতলীতে ২০ বছর পূর্বে মারা যাওয়া সুইখেফ্রু নামের এক রাখাইন নারীর জমি দলিল করে নিয়েছে একটি প্রতারক চক্র। এঘটনায় তালতলি থানায় একটি মামলা করে মৃত সুইখেফ্রু’র পরিবার। মি:চান থান(৫৪) ও মি: নিমং(৪৫) নামের দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
মামলা সূত্রে জানা যায়,উপজেলার নিশান বাড়িয়া ইউনিয়নের মৃত চিনিময় ওরফে চানিয় মেয়ে সুইখেফ্রু নামের এক রাখাইন নারী ২০ বছর পূর্বে মারা যায়। কিন্তু প্রতারক চক্রের সহযোগিতায় তাকে জীবিত দেখিয়ে ঔ এলাকার মি:চান থান(৫৪) নিজ নামে পাওয়ার অব এ্যাটর্ণি নেয়। চলতি বছরের ২ সেপ্টেম্বরে সুইখেফ্রু নামের পাওয়ার অব এ্যাটর্ণি ক্ষমতা বলে অজ্ঞাত এক মহিলাকে সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে হাজির করিয়ে মি:চান থান নিজের নামে জাল দলিল করেন। সেখানে মি:নিমং নামের এক রাখাইন দলিলের পরিচিত দেন। বিষয়টি সুইখেফ্রু’র ভাই মৃত্যু মংয়েনসে’র মেয়ে মিসেস: খেনচান জানতে পেয়ে আমতলী সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে খোঁজাখুজি করেন। পরে ২৬ সেপ্টেম্বর দলিলের সহি-মহরের নকল উঠায়। সেখানে মি: চান থান ৪৪ নং বড়বগী মৌজার ৫৪ টি দাগ থেকে মোট ১৩.২৮ একর জমির দলিল নেয় দলিল দাতার ঠিকানা দেওয়া হয় নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের নামিশে পাড়ায়। যাহার দলিল নং ৪৯৯২/২১। সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে সুইখেফ্রু’র যে জন্ম সনদ জমা দেওয়া হয় সেটিও জাল। নিশানবাড়িয়া ইউপি থেকে নেওয়া জন্ম সনদে যে নাম্বারটি দেওয়া আছে সেটি অনলাইনে সার্চ দিলে অন্য এক মহিলার নাম আসে। দলিলে চিনিময় ওরফে চানিয়’র মেয়ে সুইখেফ্রু নামের এই লোক এই ইউনিয়নে বসবাস করেনি কোনোদিন। পরে ১ অক্টোবর তালতলী থানায় খেনচান বাদী হয়ে মি:চান থান(৫৪) ও মি: নিমং(৪৫) নামের দুই জনের নাম উল্লেখ করে আরও ৪/৫ জন অজ্ঞাত আসামী করে একটি জাল-জালিয়াতীর মামলা করেন। এ ঘটনায় পুলিশ মি:চান থান(৫৪) ও মি: নিমং(৪৫) কে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।
মামলার মিসেস:খেনচান বলেন, আমার ফুফু সুইখেফ্রু পাশ্ববর্তী জেলা পটুয়াখালীর কলাপাড়ার আমখোলাপাড়া এলাকায় বসবাস করেন ও বিগত ২০ বছর আগে মায়ানমার(বার্মা) বসে মারা যায়। মৃত্যুর পরে ওয়ারিশ সূত্রে তার সকল সম্পত্তি আমি সহ আমার পরিবারের সদস্যরা প্রাপ্ত হই। কিন্তু মি:চান থান ভুয়া ঠিকানা ও কাগজপত্র দাখিল করে দলিল নেয়। সু-বিচার পাওয়ার জন্য মামলা দায়ের করি।
নামিশেপাড়া আইন শৃঙ্খলা সমন্বয় কমিটির সভাপতি মি:চোচিংমং বলেন, দলিলে চিনিময় ওরফে চানিয়’র মেয়ে সুইখেফ্রু নামে দাতার নাম ও ঠিকানা নামিশে পাড়াতে উল্লেখ করা হয়েছে। সে কোনো দিনই অত্রপাড়াতে বসবাস করেনি এবং ছিলো না।
এব্যাপারে আমতলী উপজেলা সাব-রেজিষ্টার এস.এম আদনান নোমান পাওয়ার অব এ্যাটর্ণির কথা স্বীকার করে বলেন,
হাজারো দলিলের মধ্যে ২-১ টা ভুল হতে পারে ভুক্ত ভোগী পরিবার আমাদের কাছে সহায়তা চাইলে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।
তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ কামরুজ্জামান মিয়া বলেন,থানায় একটি জাল জালিয়াতীর মামলা হয়েছে। এতে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।তাদের আদালতের মাধ্যেমে কারাগারের পাঠানো হয়েছে।

সর্বশেষ