১১ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

স্বামীকে হত্যার পর পাকের ঘরে লাশ ফেলে পালিয়েছিল স্ত্রী কোকিলা বেগম

সোহেল, বিশেষ প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর আবু সালেহ (৫০) নামে এক দিনমজুর হত্যা মামলার প্রধান আসামী তার স্ত্রী কোকিলা বেগম (২৭) কে ২৪ ঘন্টার মধ্যে গ্রেপ্তার করেছে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা মঠবাড়িয়া থানার এস.আই নূর আমিন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পাশর্^বর্তী ভান্ডারিয়া উপজেলার তেলিখালী এলাকার একটি বাড়ি থেকে রোববার সকালে গ্রেপ্তার করেন। তদন্তের স্বার্থে ওই বাড়িটির নাম উল্লেখ করেন নি। নিহত আবু সালেহ মঠবাড়িয়া সদর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড উত্তর মিঠাখালী গ্রামের মৃত বারেক সুফির ছেলে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মঠবাড়িয়া সার্কেল) মোহাম্মদ ইব্রাহীম জানান, শনিবার শেষ রাতের কোন এক সময় স্বামী আবু সালেহর লাশ পাকের ঘরে ফেলে রেখে তার তৃতীয় স্ত্রী কোকিলা বেগম আত্মগোপন করেন। আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে আসামী কোকিলা বেগমের অবস্থান নির্ধারণ করে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে (কোকিলা বেগম) জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে এ হত্যাকান্ডের সাথে কে বা কাহারা জড়িত রয়েছে। পরবর্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মঠবাড়িয়া থনার ওসি মুহা. নূরুল ইসলাম বাদল বলেন, ৩০ জুলাই শনিবার সকালে উপজেলার উত্তর মিঠাখালী নিহত আবু সালেহর পাকের ঘর থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। এঘটনায় নিহতের প্রথম সংসারের মেয়ে সালমা আক্তার লিপি বাদি হয়ে শনিবার দুপুরেই মঠবাড়িয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

নিহতের পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নিহত আবু সালেহ’র তিনটি বিয়ে রয়েছে। তৃতীয় স্ত্রী কোকিলা বেগমের সাথে প্রায়ই কলহ বেঁধে থাকতো। কিন্তু তার বাড়িটি আলাদা হওয়ায় পরিবারের অন্যরা কেহ সেখানে যেতেন না। শুক্রবার গভীর রাত একটি গরু বিক্রির টাকা নিয়ে দুজনের মধ্যে তুমুল ঝগড়া চলছিলো। শনিবার সকালে প্রতিবেশী এর নারী রান্না ঘরের মেঝেতে তার লাশ দেখতে পেয়ে চিৎকার করেন। পরে স্থানীয়রা থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন। ময়না তদন্ত শেষে শনিবার রাতে নিহতের লাশ পারবারিক কবরস্থনে দাফন করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email

শেয়ার করুনঃ

Share on facebook
Facebook
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email

সর্বশেষ